ঢাকা-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে পাবলিক টয়লেট

ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়ক। ঈদে ঘরমুখো মানুষদের জনদুর্ভোগের ভয়ানক আতঙ্কের নাম। ঈদ আসলেই ছুটির দিন থেকেই যাত্রীদের কারণে গণপরিবহনের চাপ কয়েকগুণ বেড়ে যায়। 

ফলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা জ্যামে আটকে থাকতে হয় ঘরমুখো মানুষদের। তবে, এবার টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলো মহাসড়কের যানজট নিরসন ও সহনীয় পর্যায় রাখতে নিয়েছেন নানা উদ্যোগ।এ মহাসড়কের এলেঙ্গা থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব ১৩ কিলোমিটার সড়কের দুই লেন। 

যার কারণে এ অংশে গতবারের মতো এবারো যানজটের আশঙ্কা করছেন পরিবহন মালিক, শ্রমিকরা ও যাত্রীরা। এ সময় মহাসড়কের পাশে টয়লেট না থাকায় প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে যাত্রীদের পড়তে হয় দুর্ভোগে। বিশেষ করে নারী যাত্রীদের পড়তে হয় চরম বিপাকে।

এলেঙ্গা থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে যানজটে যাত্রীদের দুর্ভোগের আশঙ্কার বিষয়টি মাথায় রেখে মহাসড়কের বিভিন্ন জায়গায় স্থাপন করা হয়েছে ২৫টি অস্থায়ী পাবলিক টয়লেট। আর এমন উদ্যোগ নিয়েছেন কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গা পৌরসভার মেয়র নূর এ আলম সিদ্দিকী। 

ব্যক্তিগত উদ্যোগেই তিনি এ টয়লেটগুলো স্থাপন করছেন। এছাড়া যাত্রীরা যেন ভোগান্তিতে না পড়েন সেদিকেও নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছেন তিনি।এ মহাসড়ক দিয়ে চলাচল করা পরিবহন শ্রমিক ও যাত্রীরা জানান, মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে অস্থায়ী টয়লেট দেখা যাচ্ছে। সত্যিই এ উদ্যোগটি প্রশংসার। 

ঈদে ঘরমুখো যাত্রীরা যানজটের কারণে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে কষ্ট হয়। নারী যাত্রীরা পড়েন বিভ্রান্তিকর অবস্থায়। অস্থায়ী টয়লেট থাকায় তাদের সমস্যা অনেকটাই কম হবে।এ ব্যাপারে মেয়র নুর এ আলম সিদ্দিকী বলেন, ঈদ আসলেই এ মহাসড়কে যানজটের কবলে পড়েন ঘরমুখো যাত্রীরা। 

এতে করে যাত্রীদের প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে কষ্টকর হয়ে পড়ে। বিশেষ করে নারী যাত্রীরা পড়েন বিভ্রান্তিকর অবস্থায়। তাই মহাসড়কে চলাচলরত পরিবহন শ্রমিক ও যাত্রীদের কষ্ট লাগবের কথা ভেবে মহাসড়কের বিভিন্ন জায়গায় অস্থায়ী ২৫টি পাবলিক টয়লেট স্থাপন করা হয়েছে।

buttons=(Accept !) days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !
To Top