ব্রাজিলের বিপক্ষে দুই ম্যাচেই খেলতে নারাজ আর্জেন্টিনা

গত বছরের ৫ সেপ্টেম্বর বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা ম্যাচের ৫ মিনিট গড়াতেই গোলযোগপূর্ণ পরিস্থিতির জন্য স্থগিত হয়েছিল। 

ফিফার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, স্থগিত হওয়া ম্যাচটি আগামী ২২ সেপ্টেম্বর আবার মাঠে গড়াবে। যদিও আর্জেন্টিনা সেই ম্যাচ খেলতে চায় না।

অপরদিকে, অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে আগামী ১১ জুন হতে যাওয়া প্রীতি ম্যাচটিও খেলতে চায় না আলবিসেলেস্তেরা

কোয়ারেন্টাইন নিয়ম ভাঙার অভিযোগে বন্ধ হওয়া বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচ খেলতে ফিফার দেয়া সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করবে আর্জেন্টাইন ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (এএফএ)।

অ্যাসোসিয়েশনের একজন কর্মকর্তা বলেছেন, আপিল ক্রীড়া আদালতে আর্জেন্টিনা আপিল করবে।

এএফএ’র উপদেষ্টা আন্দ্রেস উরিচ টিভি সাক্ষাৎকারে বলেছেন,‘আমরা বিশ্বাস করি সিদ্ধান্তটি অন্যায্য এবং আর্জেন্টিনা খেলাটি বাতিলে দায়ী নয়। আমরা মনে করি যে আমরাই সঠিক এবং বিশ্বাস করি আমাদের এটি আদালতে নিতে হবে।’

এর আগে আর্জেন্টিনার গণমাধ্যম ফিফার পাঠানো একটি চিঠি প্রকাশ করেছিল। সেই চিঠিতে স্থগিত হওয়া ম্যাচটি ২২ সেপ্টেম্বর খেলার জন্য দুই দলকে নির্দেশ দেয়া হয়।স্থগিত হওয়া সেই ম্যাচে আর্জেন্টিনার চার ফুটবলার এমিলিয়ানো বুয়েন্দিয়া, এমিলিয়ানো মার্টিনেজ, জিওভানি লো চেলসো ও ক্রিশ্চিয়ান রোমেরোর বিরুদ্ধে কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম ভাঙার অভিযোগ আগেই এনেছিল ব্রাজিলের স্বাস্থ্য বিভাগ। পরে তাদেরকে দুই ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ করে ফিফা।ভ্রমণকারীদের দুই সপ্তাহ আগে যুক্তরাজ্য, সাউথ আফ্রিকা ও ভারতে যারা ছিলেন, তাদের ব্রাজিলে প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। যদি না তারা নাগরিক না হন বা স্থায়ীভাবে বসবাস না করে থাকেন।

ব্রাজিলিয়ান কর্মকর্তারা বলেছিলেন, খেলার আগে ১৪ দিন ধরে অভিযুক্ত খেলোয়াড়রা লাল তালিকাভুক্ত দেশে ছিল না বলে ঘোষণা দিয়ে সীমান্ত কর্মকর্তাদের বিভ্রান্ত করেছিল।

আর্জেন্টিনার কর্মকর্তারা বলেছেন, তারা বিশ্বাস করেন গত বছরের জুনে ব্রাজিলে কোপা আমেরিকায় ব্যবহৃত একই প্রোটোকল বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের জন্য দলগুলোকে মহাদেশজুড়ে ভ্রমণের অনুমতি দেয়ার জন্য ছিল। দক্ষিণ আমেরিকান ফুটবল কনফেডারেশন সেই ব্যাখ্যাটি নিশ্চিত করেছে।

দুই মাস আগে ফিফার নির্দেশের বিপক্ষে দুই মাস আগেই ক্রীড়া আদালতে আপিল করেছিল আর্জেন্টিনা। এখন পর্যন্ত বিষয়টি নিয়ে সমাধান পাওয়ার আগেই গত শুক্রবার ফিফার দেয়া নির্দেশনাকে তাড়াহুড়া বলছেন এফএ’র উপদেষ্টা আন্দ্রেস উরিচ।একদম তাড়াহুড়া হয়েছে। তারা এখনো আমাদের প্রথম আপিলের উত্তর দেয়নি। এএফএ এই নির্দেশনার বিরুদ্ধে ক্রীড়া আদালতে আপিল করবে।’

দক্ষিণ আমেরিকার দুই ফুটবল পরাশক্তির মধ্যকার স্থগিত হওয়া ম্যাচের ফলাফল বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ নয়। কারণ দুই দল ইতোমধ্যেই কাতারে যাওয়া নিশ্চিত করেছে।

এদিকে, আর্জেন্টাইন ক্রীড়া সাংবাদিক গ্যাস্টন এডুলের জানিয়েছেন, অস্ট্রেলিয়ায় হতে যাওয়া প্রীতি ম্যাচ আর্জেন্টিনা খেলতে চায় না। অর্থনৈতিক প্রতিশ্রুতি এবং খেলোয়াড়দের বিশ্রাম নেয়ার বিষয়গুলোকে কারণ হিসেবে দেখা হচ্ছে। টিকেট বিক্রি চলতে থাকলেও ম্যাচের ভবিষ্যৎ নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে অনিশ্চয়তা।

buttons=(Accept !) days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !
To Top