এডিসি হারুনের কনস্টেবলকে থাপ্পড় দেওয়ার ভিডিও ভাইরাল

রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় সংঘর্ষ থামাতে যাওয়া পুলিশ সদস্যদের একটি ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। সেখানে দেখা গেছে, পুলিশের রমনা বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) হারুন অর রশিদ এক পুলিশ কনস্টেবলকে থাপ্পড় মারছেন। 

ওই পুলিশ কর্মকর্তার এ ধরনের আচরণের নিন্দা জানিয়েছেন অনেকে।ঘটনাটি ঘটেছে গত সোমবার রাতে। নিউমার্কেট এলাকায় ঢাকা কলেজের ছাত্রদের লক্ষ্য করে পুলিশ সদস্যদের রাবার বুলেট ছোড়ার নির্দেশ দিচ্ছিলেন এডিসি হারুন অর রশিদ। 


এ সময় ‘গুলি শেষ হয়ে গেছে’ বলায় ওই পুলিশ কনস্টেবলকে থাপ্পড় মারেন তিনি। এ নিয়ে গণমাধ্যমেও খবর প্রকাশিত হয়েছে। 


আরও পড়ুভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ার পর পুলিশ কর্মকর্তা হারুন অর রশিদকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার দাবি তুলেছেন ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা। এ বিষয়ে বক্তব্যের জন্য এডিসি হারুনের মুঠোফোনে কল করে ও তাঁকে খুদেবার্তা পাঠিয়ে তাঁর সাড়া পাওয়া যায়নিআজ বুধবার বিকেলে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করে কনস্টেবলকে এডিসি হারুনের থাপ্পড় মারার বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়।


বিষয়টি নিয়ে ডিএমপি কমিশনার  বলেন, ‘এটা নিয়ে আপনাদের এত ব্যস্ত হওয়ার কিছু নেই। এটা নিয়ে আমরা কোনো ব্যবস্থাও নেব না, কিছু করব না, তদন্তও করব না। কনস্টেবলকে সামনে যেতে বলা হচ্ছিল। কিন্তু তিনি সামনে যাচ্ছিলেন না। আমরা অনেক সময় তাঁদের ধাক্কাটাক্কা দিয়ে সামনের দিকে নিয়ে যাই। পুলিশের এটা নতুন কিছু নয়।’


আরও পড়ুন ঢাকা কলেজের ছাত্রদের সংবাদ সম্মেলনে দাবিঃ


১. এই ন্যাক্করজনক হামলার উস্কানিদাতা, ইন্ধনদাতা ও হামলাকারীদের তদন্ত সাপেক্ষে চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।


২. আহত সকল শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার সকল দায়ভার নিউমার্কেট ব্যবসায়ি সমিতি ও আইনশৃঙ্খলাবাহিনীকে নিতে হবে।


৩. হকারদের হামলায় নিহত পথচারি নাহিদের পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।


৪. রোগী বহনকারী অ্যাম্বুলেন্সের ওপর হামলাকারীদের ভিডিও ফুটেজ দেখে শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনতে হবে।


৫. দায়িত্বরত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ডিসি, এডিসি ও নিউ মার্কেট থানার ওসিকে প্রত্যাহার করতে হবে। এবং পুলিশ প্রশাসনকে কলেজ প্রশাসনের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।


৬. প্রতিটি মার্কেট ও দোকানে সিসিটিভি স্থাপন করতে হবে।


৭. প্রতিটি মার্কেটে কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের জন্য আচরণ বিধি প্রণয়ন ও তার সুষ্ঠু বাস্তবায়ন করতে হবে।


৮. ফুটপাত দখলমুক্ত, অবৈধ কার পার্কিং উচ্ছেদ ও চাদাবাজি বন্ধ করতে হবে।


৯. ক্রেতা হয়রানি, নারীদের যৌন হয়রানি বন্ধে একটি বিশেষ মনিটরিং সেল গঠন করে ক্রেতাদের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।


১০. চন্দ্রিমা সুপার মার্কেট ও নিউ সুপার মাকের্টে ঢাকা কলেজের সম্পদ লিজ বাতিল করে ফিরিয়ে দিতে হবে।


এই দাবি অনতিবিলম্বে কার্যকর করা না হলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।নন

buttons=(Accept !) days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !
To Top