নাগরপুরে এক নারীকে পিটিয়ে হত্যা

নাগরপুর(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধিঃ-টাঙ্গাইলের নাগরপুরে নুরভানু (৫৮) নামের এক নারী নৃশংসভাবে খুন হয়েছে। শনিবার সকালে অজ্ঞাতনামা ঘাতক নিজ বাড়ীতে তাকে পিটিয়ে হত্যা করে রান্না ঘরের সামনে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। উপজেলা সদরের দুয়াজানী গ্রামে মর্মান্তিক  এ ঘটনাটি ঘটে। নিহত নুরবানু ওই গ্রামের মো. বাবুল মিয়ার স্ত্রী। দিনের আলোতে নিজ বাড়িতে ওই নারীকে পিটিয়ে হত্যার পর ঘাতকরা কি ভাবে পগারপার হয়েছে এ নিয়ে  এলাকায় জোর গুঞ্জন চলছে।  এ দিকে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে নাগরপুর থানার অফিসার ইর্নচাজ (ওসি) সরকার আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, মৃতের রক্তাক্ত লাশ উদ্বার করা হয়েছে। ওই পরিবারের ছেলে ও ছেলের বৌ সহ আরো কয়েক জনকে জিজ্ঞাসা বাদের জন্য আনা হয়েছে । 

 

এলাকাবাসী ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার সদর ইউনিয়নের দুয়াজানি গ্রামের মৃত. আব্দুল মিয়া তিন ছেলে সন্তান রেখে প্রায় ১২ বছর আগে মারা যায়। তার মৃত্যুও ২ বছর পর স্ত্রী নুরভানু ফের বঙ্গবটিয়া গ্রামের তিন সন্তানের জনক মো. বাবুল মিয়াকে দ্বিতীয় বিয়ে করে নিজ বাড়ীতে বসবাস কওে আসছে। বাবুল মিয়া এ দিন সকালে বাড়ী থেকে কীটনাশক সার নিয়ে জমিতে যায়।  নুর ভানু সকালের খাবারের জন্য রান্না করতে যায়। এ সময় তাকে লাঠি দিয়ে কে বা কাহারা পিটিয়ে  হত্যা করে ফেলে রেখে চলে যায়। 

 

নিহত  নুরভানুর স্বামী বাবুল মিয়া বলেন, আমি রাতযাপন করে সকালে জমিতে সেচ দেওয়ার জন্য  সার নিয়ে চলে যাই। আনুমানিক ৮টার দিকে হত্যা কন্ডের  সংবাদ পাই। দ্রুত বাড়ীতে এসে রান্না ঘরের সামনে আমার স্ত্রীর রক্তাক্ত মৃতু দেহ পরে থাকতে দেখি। 

 
এ দিকে এ হত্যা কান্ডের মোটিভ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া না গেলেও পারিবারিক কোলহের কারনে এ হত্যা কান্ড সংঘটিত হতে পারে বলে পুলিশ প্রাথমিক ভাবে ধারনা করছে। 

 

এ ব্যপারে নাগরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জাহাঙ্গীর আলম জানান, ঘটনাস্থল থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য প্রেরন করা হয়েছে। আইনগত বিষয়টি প্রক্রিয়াধিন রয়েছে।

buttons=(Accept !) days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !
To Top