বৃহস্পতিবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২২

টাঙ্গাইলে স্ত্রী হত্যার দায়ে ২০ বছর পর স্বামীর মৃত্যুদন্ড

টাঙ্গাইলে যৌতুকের দাবিতে বিশ বছর আগে এক নারীকে হত্যার দায়ে তার স্বামীকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত।

বৃহস্পতিবার দুপুরে টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যালের বিচারক বেগম খালেদা ইয়াসমিন এ রায় দেন।দণ্ডিত মো. শাহাদাৎ হোসেন টাঙ্গাইলের সদর উপজেলা চৌবাড়িয়া গ্রামের ওমর আলীর ছেলে।
 
রায় ঘোষণার সময় শাহাদাৎ আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন না। তিনি জামিনে পলাতকব রয়েছেন বলে কোর্ট পুলিশের ইন্সপেক্টর তারবীর আহমেদ জানান।
 
টাঙ্গাইল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যালের বিশেষ পিপি আলী আহমেদ জানান, ২০০২ সালে শাহাদাৎ হোসেনের সঙ্গে সদর উপজেলার ঘারিন্দা ইউনিয়নের আউলটিয়া গ্রামের জাহারা খাতুনের বিয়ে হয়। বিয়ের কয়েক মাস পরে দশ হাজার টাকা যৌতুক দাবি করে শাহাদাৎ। জাহারার পরিবার যৌতুকের টাকা দিতে না পারায় শাহাদাৎ তাকে নির্যাতন করে আসছিল।
২০০২ সালের ৬ সেপ্টেম্বর শাহাদাৎ শ্বশুর বাড়ি যায়। সেখানে রাতের খাবার খেয়ে একটি ঘরে ঘুমাতে যান। সেদিন জাহারাও ওই ঘরে ছিলেন। পরদিন ভোরে বাড়ির লোকজন তাদের ঘরের দরজা খোলা দেখে ভেতরে যায়। কিন্তু কাউকে না পেয়ে বাড়ির আশপাশে খোঁজাখুঁজি শুরু করে। পরে বাড়ির দক্ষিণ পাশের মেহেগুনি বাগানের কাছে একটি পুকুর থেকে জাহারার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ সময় জাহারার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়। পরে এ ঘটনায় তার ভাই ইউনুস আলী বাদী হয়ে টাঙ্গাইল সদর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে হত্যা মামলা দায়ের করেন

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন ভিউ